শনিবার, ১৪ ডিসেম্বর ২০১৯, ০২:৩০ অপরাহ্ন

বগুড়া উপ-নির্বাচনে বিএনপির গোলাম মোহাম্মাদ সিরাজ জয়ী

রিপোর্টার নাম
  • আপডেটের সময় : মঙ্গলবার, ২৫ জুন, ২০১৯
  • ৬১ সময় দেখুন

বগুড়া-৬ সদর আসনের উপ-নির্বাচনে বেসরকারিভাবে ধানের শীষের প্রার্থী গোলাম মোহাম্মাদ সিরাজ নির্বাচিত হয়েছেন। ১৪১ কেন্দ্রের মধ্যে সবকটি কেন্দ্রের প্রাপ্ত ভোট ধানের শীষে পড়েছে ৮৮ হাজার ৪২৩ ভোট, নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী নৌকায় পড়েছে ৩২ হাজার ১৯৮ ভোট। সকাল নয়টা থেকে শুরু হয়ে ভোট গ্রহণ চলে বিকাল ৫টা পর্যন্ত। এদিকে নির্বাচনে কেন্দ্রগুলোয় ভোটারের উপস্থিতি সকাল থেকে কম থাকলেও বিকালের দিকে কিছুটা বেশি লক্ষ্য করা গেছে। এবার বগুড়ার এই উপ-নির্বাচনে ১৪১ কেন্দ্রের সবকটি কেন্দ্রেই ইলেকট্রিক ভোটিং মেশিন ইভিএমের মাধ্যমে ভোট গ্রহণ করা হয়েছে। এই আসনে উপ-নির্বাচনের ঘোষণার সময় ইভিএমে ভোট নেয়ার ঘোষণার পর সাধারণ ভোটারদের মধ্যে মিশ্র প্রতিক্রিয়া দেখা গেলেও শেষ পর্যন্ত ভোটাররা এই পদ্ধতিতেই ভোট প্রদান করেছেন। সাধারণ ভোটারদের মধ্যে ইভিএম নিয়ে ভীতি থাকলেও ভোটের আগে মহড়ার মাধ্যমে ভোটারদের পদ্ধতি শেখানো হয়েছে নির্বাচন অফিসের মাধ্যমে। ফলে ভোটের দিন তেমন প্রভাব পড়েনি।

এদিকে শহরের সেন্ট্রাল স্কুল কেন্দ্রে ভোট শুরুর ঘণ্টাখানেক পরে ধানের শীষের নির্বাচনী ক্যাম্পে নৌকার সমর্থকরা হামলা চালিয়েছে। তাদের পোস্টার ছিঁড়ে ফেলেছে। ভোটার তালিকাসহ প্রয়োজনীয় কাগজপত্র ছিনিয়ে নিয়েছে। জেলা কৃষক দলের যুগ্ম সম্পাদক জাহাঙ্গীর ইসলাম সওদাগর বলেন, আমাদের নেতাকর্মীদের ওপর হঠাৎ হামলা চালায় নৌকার সমর্থকরা। এসময় তাদের স্টল ভেঙে ফেলার পাশাপাশি সকালের নাস্তাগুলোও নিয়ে যায়। পরে পুলিশকে খবর দিলে ঘটনাস্থলে এসে নৌকার সমর্থকদের সতর্ক করে। এ বিষয়ে সদর থানার ইন্সপেক্টর আবুল কালাম আজাদ বলেন, এ এমন ঘটনার কথা শোনার পরেই দ্রুত পুলিশ সেখানে যায় এবং পরিস্থিতি স্বাভাবিক করে। এছাড়া এখন পর্যন্ত কোথাও অপ্রীতিকর ঘটনার খবর পাওয়া যায়নি।

আওয়ামী লীগ নেতা গোলাম আজম টিকুল জানান, বগুড়ার সর্বত্র শান্তিপূর্ণভাবে ভোট গ্রহণ হয়েছে। কোথাও কোনো ধরনের অপ্রীতিকর ঘটনা ঘটেনি। তিনি মনে করেন ইভিএমের মাধ্যমে ভোটগ্রহণ নিরপেক্ষ হবে। এদিকে ইভিএমে ভোট গ্রহণ নিয়ে বিএনপি নেতা সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান আলী আজগর তালুকদার হেনা বলেন, এখন প্রযুক্তির যুগ। ভোট গ্রহণ প্রযুক্তিতে হচ্ছে। এটি খুব ভালো উদ্যোগ। যদি সরকার এই পদ্ধতিতে কোনো অসৎ উদ্দেশ্য না রাখে। তবে সব মিলে এটি ভালো এবং প্রশংসার যোগ্য।

আপনার সামাজিক মিডিয়া এই পোস্ট শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই বিভাগের আরো খবর