শুক্রবার, ০২ অক্টোবর ২০২০, ০৫:০৭ পূর্বাহ্ন

করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাবের মধ্যে ত্রাণ বিতরণে অনিয়ম হলে তা সহ্য করা হবে না : বলেছেন,ওবায়দুল কাদের

রিপোর্টার নাম
  • আপডেটের সময় : শনিবার, ১১ এপ্রিল, ২০২০
  • ১০৩ সময় দেখুন

ঢাকা, ১১ এপ্রিল ২০২০ইং (ঢাকা টিভি রিপোর্ট): আজ শনিবার সকালে নিজ বাসভবনে ব্রিফিংকালে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছেন, করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাবের মধ্যে ত্রাণ বিতরণে অনিয়ম হলে তা সহ্য করা হবে না।

এ সময় সকল মতপার্থক্য ভুলে বিভিন্ন রাজনৈতিক, সামাজিক, সংস্কৃতিক, পেশাজীবী ও স্বেচ্ছাসেবী সংগঠনকে ধৈর্য এবং সাহসিকতার সঙ্গে করোনা পরিস্থিতি মোকাবেলা করারও আহ্বান জানান ওবায়দুল কাদের।

গত বছরের শেষ দিন চীনের উহান শহরে করোনা শনাক্ত হওয়ায় দুই মাস আট দিন পর বাংলাদেশে প্রথম করোনা রোগী শনাক্ত হয়। সেদিন তিনজনের শরীরে প্রাণঘাতী ভাইরাসটিও সংক্রমণ পাওয়া গেলেও আজ পর্যন্ত এই সংখ্যাটা চার শতাধিক ছাড়িয়েছে। ইতোমধ্যে ভাইরাসটিতে আক্রান্ত হয়ে ২৭ জনের মৃত্যুর খবর এসেছে।

অচেনা ভাইরাসটি যেন ব্যাপক আকারে ছড়িয়ে না পড়ে সেজন্য সাবধানতার অংশ হিসেবে সরকার বাস, ট্রেন, লঞ্চ চলাচল বন্ধ করে দিয়েছে। এছাড়া দেশে সাধারণ ছুটি ঘোষণা করা হয়েছে। কিন্তু দেশ এক ধরনের লকডাউনের মধ্যে থাকায় বিপাকে পড়েছেন দিন এনে দিন খাওয়া মানুষরা। রোজগারের পথ বদ্ধ হয়ে যাওয়ায় তাদের কঠিন সময় পার হতে হচ্ছে। এ অবস্থায় তাদের পাশে দাঁড়িয়েছে সরকার। কিন্তু ত্রাণসামগ্রী বিতরণ করতে গিয়ে অনেক জায়গায় অনিয়মের খবর আসছে গণমাধ্যমে। ত্রাণ বিতরণে যেন অনিময় না হয় সেজন্য হুঁশিয়ারি উচ্চারণ করেন ওবায়দুল কাদের।

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বলেন, ‘ত্রাণ বিতরণের নামে কোন রকম অনিয়ম সহ্য করা হবে না। খেটে খাওয়া মানুষের ত্রাণ ঘরে ঘরে গিয়ে পৌঁছে দিতে হবে।’

সমাজের বিত্তবান ও দলের নেতাকর্মীদের অসহায় মানুষের পাশে দাঁড়ানোর আহবান জানিয়ে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বলেন, এই চলমান প্রয়াস আরও জোরদার করতে হবে।

একটি কুচক্রী মহল গুজব ছড়াচ্ছে অভিযোগ করে তাদের বিরুদ্ধে সামাজিক প্রতিরোধ গড়ে তোমার আহ্বান জানান সেতুমন্ত্রী।

ঘরে অবস্থান এবং সামাজিক দূরত্ব যারা মানবেন না তারা নিজেরাই নিজেদের বিপদ ডেকে আনছে উল্লেখ করে ওবায়দুল কাদের।

সেতুমন্ত্রী বলেন, এই সংকটের সময়েও সুখবর হচ্ছে দেশের বৃহত্তর প্রকল্প পদ্মাসেতুর ২৮ তম স্প্যান আজ বসানো হয়েছে। ফলে ৬ দশমিক এক পাঁচ কিলোমিটার দীর্ঘ এই সেতু এখন ৪ দশমিক দুই কিলোমিটার দৃশ্যমান হলো।

আপনার সামাজিক মিডিয়া এই পোস্ট শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই বিভাগের আরো খবর